অন্তরআত্না দিয়ে আনন্দটাকে উপভোগ করতে পারিনা!

সাধনা বা কষ্টের পরে যে আনন্দ তার গভীর উপলদ্ধি শুধু মনেই অনুভব করা সম্ভব। ঈদের আনন্দটাও সেই রকম। নতুন জামার স্তুপ, ঈদের কোলাকুলি, আত্মীয়ের বাসায় মেজবানি দাওয়াত, রং মেখে সেজে ঘুরতে যাওয়া না হলেও সেই আনন্দ যে কমে যাবে ব্যাপারটা তা নয়। আমাদের যুগ যুগের বানানো অভ্যাস থেকে শুধু বের হয়ে আমরা অন্তরআত্না দিয়ে আনন্দটাকে উপভোগ করতে পারিনা! কঠিন সংযোম, বিধাতার প্রতি আনুগত্য প্রকাশ, ত্যাগের শিক্ষা নিয়ে দুখীর মাঝে সুষম বন্টন, দীর্ঘদিনের কঠিন বদঅভ্যাস ত্যাগ করে নিজেকে সুঅভ্যাসে অভ্যস্হ করা এক একটি কঠিন সাধনা বা যুদ্ধ। ঠুনকো কিছু রীতি-রেওয়াজ পালন না করলে যে পরিশুদ্ধ হওয়ার আনন্দটা কমে যাবে ব্যাপারটা তা নয়। চরম ঝড় বৃষ্টি শেষে প্রকৃতির মাঝে কিছুক্ষন হেটে দেখবেন। উচ্ছ্বসিত বাতাসে গাছের পরিস্কার ডালাপালাগুলো আনন্দে নাচতে থাকে আর শীতল বাতাসে শরীর মন কেমন হীম হয়ে আসে!
পুরো বিশ্ব ও দেশের পরিস্থিতি খারাপ। এমনকি আরো জটিল পরিস্থিতিতে পড়তে যাচ্ছি সবাই। গবেষক, বিশেষজ্ঞদের কঠিন কথাবার্তায় হতাশ না হয়ে কেন যেন বারবার কোন আলৌকিক সমাধানের আশায় নতুন করে বুকের পাটা শক্ত করে চলেছি। একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে, শুধু এই চিন্তা করলেই আনন্দবোধ হচ্ছে। সব বিপদ ছাপিয়েই নতুন দিনের স্বপ্নই আমাদের বাচিয়ে রেখেছে। এই মহামারিতে পরিবারের সবাই এখনো সুস্হ অবস্হায় বেঁচে আছি বা কেউ অসুস্হ হয়েও আল্লাহ রহমতে সুস্হ হয়ে দ্বিতীয় জীবন ফিরে পেয়েছে,এটাই ঈদের বড় উপহার। প্রিয়জনদের সাথে একটি দিন পৃথিবীতে বেঁচে থাকার চেয়ে বড় উপহার যে আর নেই তা এতদিনে সবাই বুঝে গেছি।
সবার জন্য নিরন্তর শুভকামনা।
Akram Hossain Mithun
Chairman, MIS
Faculty (university) at

University of Dhaka
  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত