মুশফিকের পর কোহলি

অ্যান্টিগা টেস্টে প্রথম দিন শেষে বিরাট কোহলি অপরাজিত ছিলেন ১৯৭ বলে ১৪৩ রান করে। কাল মধ্যাহ্ন বিরতির আগে ডাবল সেঞ্চুরি পূর্ণ করলেন ২৮১ বলে। কোহলির ২০০ রান বিদেশের মাটিতে কোনো ভারত অধিনায়কের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি, সর্বোচ্চ ইনিংসও। বিরতির থেকে ফিরে দ্বিতীয় বলেই আউট শ্যানান গ্যাব্রিয়েলের বলে।
২০০ রানে কোহলির আউট হওয়ার পর চলে এল মুশফিকুর রহিমের নামও। ২০১৩ সালের মার্চে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গল টেস্টে অনন্য এক কীর্তি গড়েছিলেন বাংলাদেশ টেস্ট অধিনায়ক। বাংলাদেশের প্রথম ডাবল সেঞ্চুরির কীর্তিটা তাঁরই। তৃতীয় দিন শেষে প্রথম ইনিংসে মুশফিক অপরাজিত ছিলেন ১৫২ রানে। ঐতিহাসিক মুহূর্তটা উপহার দিয়েছিলেন চতুর্থ দিনে এসে। গত বছর এপ্রিলে পাকিস্তানের সঙ্গে খুলনা টেস্টে তামিম ইকবাল ২০৬ করার আগে ওটাই ছিল টেস্টে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সর্বোচ্চ ইনিংস।
কাল কোহলির ডাবল সেঞ্চুরির পর কেন মুশফিক প্রসঙ্গ আসছে? টেস্ট ইতিহাসে কাঁটায় কাঁটায় ২০০ রান করে আউট হওয়া অধিনায়ক মাত্র দুজন। সেই দুজন কে, নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। মুশফিক ও কোহলি—দুই অধিনায়কই ডানহাতি পেসারের শিকার। মুশফিককে এলবিডব্লু  করেছিলেন নুয়ান কুলাসেকারা আর কোহলিকে বোল্ড করলেন গ্যাব্রিয়েল।
অধিনায়কের তালিকা থেকে যদি বেরিয়ে আসা যায়, ঠিক ২০০ রান করে টেস্টে আউট হওয়া ব্যাটসম্যানের সংখ্যা হবে পাঁচ—ওয়ালি হ্যামন্ড, মহসিন খান, ডেভিড বুন, স্টিভ ওয়াহ ও গ্রায়েম স্মিথ।

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত