সবুজের দেশ সবুজে আঁকি-পথ চলা শুরু গ্রিন অভয়নগরের

আত্মপ্রকাশ করলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “গ্রীন অভয়নগর”।
“সবুজের দেশ সবুজে আঁকি”গাছ লাগিয়ে দেশ গড়ি” এ স্লোগানকে সামনে নিয়ে, পথচলা শুরু হল- গ্রিন অভয়নগরের। এই উপজেলাকে দুষনমুক্ত রাখার জন্য বিভিন্নমুখী সেচ্ছাশ্রম মুলক কাজের প্রচেষ্টা চালানোই এই সামাজিক সংগঠনের মুল উদ্দেশ্য। উদ্যোক্তাতাদের আশা, দক্ষিন বাংলার অন্যতম ব্যবসা প্রধান এলাকা, নদীবন্দর ও শিল্প শহর নওয়াপাড়ার প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষায় ভুমিকা রাখবে এই সামাজিক সংগঠন। একদল তরুণের সমন্বয়ে গঠিত এ সেবামুলক সংগঠনটি এলাকার পরিবেশ সুরক্ষায় ভ্যানগার্ড হিসেবে কাজ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত কররেন গ্রীণ অভয়নগরের সদস্যরা।
আত্মপ্রকাশের প্রথম দিনই উপজেরার নুরবাগ মোড়ে তিনটি পয়েন্ট কয়েক শত মানুষের মাঝে স্বাস্থ্য বিধি মেনে ফ্রি মাস্ক বিতরণ করা হয়। ৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ১০ টি করে সর্বমোট গাছ ৬০ টি লাগানোর কর্মসূচি পালন করেছে সংগঠনটি।
বৃহষ্পতিবার সকাল ১০টায় শহরের নুরবাগ মোড়ে মাস্ক বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় সাধারণ পথচারীরা ব্যাপক উৎসাহের সাথে এ কাজকে স্বাগত জানান। দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশকেও এ সময় এ সামাজিক কাজে অংশ নিতে দেখা যায়। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এ সময় ট্রাফিক পুলিশ বলেন, এমন ভালো কাজ অব্যাহত রাখলে সমাজ দরদী এই সংগঠন অতি তাড়িতাড়ি অভয়নগরবাসীর মন জয় করতে সক্ষম হবে।

মাস্ক বিতরন শেষে দুপুর সাড়ে ১১ টায় ফ্রি গাছ বিতরন কর্মসূচি শুরু হয়। ঐতিহ্যবাহী নওয়াপাড়া সরকারি কলেজে গাছ বিতরনের মাধ্যমে এ কর্মসূচি শুরু হয়। এসময় কলেজের প্রিন্সিপাল রবিউল ইসলাম গ্রীন অভয়নগরের এমন উদ্যোগের প্রশংসা করে তরুণদের এ ধরনের উদ্যোগে এগিয়ে আসার আহবান জানান। এরপর নওয়াপাড়া মহিলা কলেজেও গাছ বিতরণ করা হয়। এছাড়াও অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, হিজবুল্লাহ মাদরাসা, আল হেরা স্কুল এন্ড কলেজ, পূর্বাঞ্চল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ মোট ৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গাছ বিনামুল্যে বিতরণ করা হয়।

গ্রীন অভয়নগরের আহবায়ক বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির তানিম এ কাজে নেতৃত্ব দেন। তিনি জানান, ব্যবসা প্রধান নওয়াপাড়ার পরিবেশ রক্ষায় সবাইকে গাছ লাগানোর আহবান জানান। এছাড়াও পরিবেশ রক্ষা ও ভৈরব নদী দূষণ মুক্ত করতে বিভিন্ন কর্মসূচির পাশাপাশি এ ধরনের কার্যক্রম অব্যহত রাখার আশা ব্যক্ত করেন।

কর্মসূচিতে আরো অংশ নেন সামুদ্রিক পরিবেশবাদী সংগঠন মেরিন জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক এর সভাপতি ও সেভ আওয়ার সি এর এক্সিকিটিভ ডিরেক্টর বিশিষ্ট সাংবাদিক মাহমুদ সোহেল।
মাহমুদ সোহেল তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশের শহরগুলোতে উন্নয়নের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে পরিবেশ দূষন। শহরের এই দূষিত আবর্জনা সবশেষ যেয়ে পড়ছে সমুদ্রে। ফলে সমুদ্রও আজ পরিবেশ বিপর্যয়ের সম্মুখীন। মানুষের অক্সিজেনের ৭৩ শতাংশ আসে সমুদ্র থেকে। তাই শহরের দূষন কমানো না গেলে সমুদ্রের দুষনও কমবে না। গ্রিন অভয়নগরের এ উদ্যোগের প্রশংসা করেন তিনি।

সুবিধা বঞ্চিত ও পিছিয়েপড়াদের সুখে দুঃখে পাশে থাকা, অসহায় মনুষের সাহায্য করা, তরুণদের বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজে উৎসাহ দান, জনসচেতনতা বৃদ্ধি, রাষ্ট্রীয় সম্পদ রক্ষার্থে জনসচেতনতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন ধরনের সামাজিক উন্নয়নমূলক কাজের মাধ্যমে অভয়নগরকে এগিয়ে নিতে চায় গ্রিন অভয়নগর । তাই এ সব সামাজিক কাজে দল মত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা চেয়েছেন গ্রিন অভয়নগরের উদ্যোক্তারা। এ ছাড়া এ কাজে আইনজীবী, সাংবাদিক, শিক্ষকবৃন্দ, কবি, সাহিত্যিক, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

 

  • সর্বশেষ খবর
  • সর্বাধিক পঠিত

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ