full screen background image
Search
,
  • :
  • :

ইন্টারনেটে স্থবির এক ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’

সাড়ে চার বছরেরও বেশি সময় ধরে স্থবির ও অকার্যকর হয়ে আছে ডিজিটাল বাংলাদেশের ওয়েবসাইট। সরকারের ওয়েব ঠিকানায় (ডোমেইন) থাকা www.digitalbangladesh.gov.bd ওয়েবসাইটে রয়েছে কেবলই একটি ছবি। ছবিটি ২০১০ সালে জাতীয় ই-তথ্যকোষের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের। যেখানে প্রধানমন্ত্রীকেও দেখা যাচ্ছে। সাইটটিতে ইংরেজিতে লেখা আছে ‘ওয়েলকাম টু ডিজিটাল বাংলাদেশ: দিস পেজ ইজ আন্ডার মেইনটেন্যান্স’।

 

সাইটটির ডানে ও বাঁয়ে সাধারণ ওয়েবসাইটের মতো কয়েকটি বোতাম থাকলেও সেগুলো আসলে স্থির ছবিরই (*.jpg ফাইল) অংশ, কোনো হাইপার লিঙ্ক নয়। কার্যত এ সাইটটি একেবারে শুরু থেকেই অকার্যকর অবস্থায় রয়েছে।


ইন্টারনেটে তথ্য খোঁজার শীর্ষ তিনটি সার্চ ইঞ্জিন গুগল, ইয়াহু ও বিং-এ ইংরেজিতে ডিজিটাল বাংলাদেশ লিখে তথ্য খুঁজলে ফলাফল তালিকার এক নম্বরে ডিজিটাল বাংলাদেশ ডট গভ ডট বিডির নাম ও লিঙ্ক চলে আসে। কিন্তু এর লিঙ্কে ক্লিক করলেই হোঁচট খেতে হয়।


বিভিন্ন ওয়েবসাইটের শুরু থেকে ধারাবাহিক অবস্থা জানার ওয়েবসাইট ওয়েব আর্কাইভের (http://web.archive.org) তথ্য অনুযায়ী ২০১০ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি ইন্টারনেটে ডিজিটাল বাংলাদেশের সাইটটি চালু হয়। মূলত সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ কার্যক্রমের বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরার জন্য এই সাইট তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। এর ব্যবস্থাপনায় ছিল জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি-ইউএনডিপির অর্থায়নে পরিচালিত প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্প।

 

বাংলাদেশ সরকারের ডোমেইনে (.gov.bd) থাকা এই ওয়েবসাইটের দায় এখন সরকার বা সংশ্লিষ্ট কোনো পক্ষই নিতে চাইছে না। ডিজিটাল বাংলাদেশ সাইটটির ব্যাপারে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদকে জিজ্ঞেস করলে তিনি প্রথমেই বলেন, ‘আমি কিছু জানি না। এটি কারা চালায়? অ্যাডমিন কে?’
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমার জানা মতে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বা আইসিটি বিভাগের কেউ এই সাইটটির দায়িত্বে নেই। তবে আমি এ ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেব।’ প্রতিমন্ত্রী এই প্রতিবেদকের সামনেই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের একজনকে ফোন করে এই ঠিকানার সাইটটি ‘ভ্যানিশ’ করে দিতে বলেন।

 

এই সাইটের ব্যাপারে এটুআইয়ের জনপ্রেক্ষিত বিশেষজ্ঞ নাইমুজ্জামান বৃহস্পতিবার বিকেলে মুঠোফোনে বলেন, ‘আমরা ভুল ঠিকানা তৈরি করেছিলাম। এর পুরো দায় আমাদেরই। আমরা এটা মুছে ফেলার চেষ্টা করছি, কিছু কারিগরি সমস্যা থাকায় এত দিন মুছে ফেলা সম্ভব হয়নি।’ তবে তিনি জানান, সরকারের সমন্বিত ওয়েবসাইট হলো জাতীয় তথ্য বাতায়ন (www.bangladesh.gov.bd)। যা চলতি বছরের ২৩ জুন চালু হয়। সরকারের তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক সব সেবা ও ডিজিটাল বাংলাদেশের সব তথ্য এই বাতায়নে রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।


প্রসঙ্গত, ডিজিটাল বাংলাদেশের অকার্যকর এই সাইট নিয়ে ২০১২ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি প্রথম আলোতে প্রকাশিত প্রতিবেদনে সংশ্লিষ্টরা বলেছিলেন সাইটটির নতুন রূপ দেওয়ার কাজ চলছে। কিন্তু বাস্তবে এটি বেওয়ারিশ এক সাইট হিসেবেই রয়ে গেছে ইন্টারনেটে।

 

২০ সেপ্টেমবর/বাংলাআওয়ার/এম

সূত্র; প্রথম আলো

 








Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *