ভারতে সব রেকর্ড ভেঙেছে করোনা


মহামারি আকার ধারণ করা করোনা ভাইরাসে ভারতে একদিনে শনাক্ত ও মৃত্যুর সব রেকর্ড ভেঙে চুরমার হয়ে গেছে। সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হয়েছেন রেকর্ড সাড়ে তিন লাখ। আর মারা গেছেন ২ হাজার ৭ শতাধিক মানুষ। দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, রোববার দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৬৯১, যা এ যাবৎ সর্বাধিক। এ পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৬৯ লাখ ৬০ হাজার ১৭২ জন।

এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৬৭ জনের, যা এখনও পর্যম্ত সবচেয়ে বেশি। এ পর্যন্ত ভারতে করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট ১ লাখ ৯২ হাজার ৩১১ জন মারা গেছেন।

দৈনিক সংক্রমণ এভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় লাফিয়ে বাড়ছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যাও। গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা বেড়েছে ১ লাখ ২৯ হাজার ৮১১। দেশে মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২৬ লাখ ৮২ হাজার ৭৫১জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে সংক্রমণ হার ২০.৩৪ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট সংক্রমণের হার ৬.১০ শতাংশ।

এদিকে ভারতে এখন রাজ্যে রাজ্যে অক্সিজেনের জন্য হাহাকার চলছে। হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগীদের মৃত্যু যেন থামছেই না। ভারতের সর্বত্রই এখন অক্সিজেনের হাহাকার, প্রতিদিনই হাসপাতালগুলোতে রোগীর মৃত্যু হচ্ছে অক্সিজেন না পেয়ে। দিল্লি ও মুম্বাইয়ের অবস্থা সবচেয়ে বেগতিক।

দেশটির বিভিন্ন শহরে অক্সিজেন সিলিন্ডারের দোকানের সামনে ক্রমশ দীর্ঘ হচ্ছে লাইন। কিন্তু অনেক দোকানেই নেই অক্সিজেন। একদিকে করোনায় হাজার হাজার মৃত্যু অন্যদিকে বিনা চিকিৎসা। সব মিলিয়ে ইতিহাসের সবচেয়ে খারাপ সময় পার করছে ভারত।

এদিকে, দিল্লির নামিদামি হাসপাতালগুলো অভিযোগ করেছে চাহিদাপত্র দেওয়া হলেও সরকার পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহ করছে না। টেলিফোন করে অক্সিজেন চাওয়া হলেও অপর প্রান্ত থেকে ধেয়ে আসছে খারাপ ভাষা। যার জেরে ক্ষুব্ধ চিকিৎসক থেকে আদালত। তাই আদালতের হুঁশিয়ারি অক্সিজেন নিয়ে কোনো গাফিলতির প্রমাণ মিললেই দেওয়া হবে ফাঁসির সাজা।

অক্সিজেনের জোগান এবং দেশে সহজলভ্য করতে মোদি সরকার শনিবার থেকেই বিদেশ থেকে আমদানি করা অক্সিজেন এবং সিলিন্ডারের ওপর থেকে ১২ শতাংশ আমাদানি শুল্ক ছাড় দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে। এতে বাজারে অক্সিজনের দাম কমবে বলে মনে করছে দেশটির সরকার।

দিল্লিজুড়ে করোনায় মৃতের হারের ঊর্ধ্বগতির মধ্যেই এভাবেই রাজধানীর বিভিন্ন গোরস্থানে গণকবর খুঁড়তে দেখা যায়। একই সঙ্গে গণহারে সৎকার চলে শহরের প্রধান শ্মশানগুলোতেও।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, রোববার (২৫ এপ্রিল) সকাল পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন ১৩ হাজার ৩৯০ জন এবং নতুন করে ৮ লাখ ২১ হাজার ৬৭৪ জনের শরীরে এই ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিশ্বে মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩১ লাখ ১২ হাজার ৭৫২ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ কোটি ৭০ লাখ ৪৪ হাজার ৩৮৯ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১২ কোটি ৫০ লাখ ৪৫ হাজার ৫৪৮ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ২৭ লাখ ৮৯ হাজার ৬৫৩ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ৮৫ হাজার ৮৮০ জনের। আক্রান্তে দ্বিতীয় ও মৃত্যুতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত।