কুমিল্লা ইপিজেডে মানব সম্পদ কর্মকর্তা হত্যার ঘটনায় বিশার্পের নিন্দা

কুমিল্লা ইপিজেডে মানব সম্পদ কর্মকর্তা হত্যার ঘটনায় বিশার্পের নিন্দা।

কুমিল্লা রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ অঞ্চলের (ইপিজেড) জুতা তৈরির একটি কারখানার চাকরিচ্যুত শ্রমিকদের ছুরিকাঘাতে ওই কারখানার প্রশাসনিক কর্মকর্তা খায়রুল বাশার সুমনের নিহত হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা, ক্ষতিপূরণ ও বিচারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সোসাইটি ফর এপারেল হিউম্যান রিসোর্স প্রোফেশনালস (বিশার্প)।

সোমবার বিশার্প এর পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতকাল ৪ মে বিশার্প এর এক জরুরি বোর্ড সভায় সর্বসম্মতিক্রমে নিহত ওই কর্মকর্তার পাশে দাঁড়ানো এবং প্রয়োজনীয় আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।

নিহত খায়রুল বাশার সুমন কুমিল্লা ইপিজেডের চাইনিজ জিং চ্যাং সুজ বিডি কারখানায় চাকরি করতেন সেখান থেকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ আদায়ের জন্য সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রচেষ্টা চালানোর কথা বলা হয়। এছাড়া নিহতের পরিবারের অন্য কাউকে চাকরি দেয়া এবং আর্থিক সহয়ায়তা প্রদান করার বিষয়ে বলা হয়।

এছাড়া বিশার্প এর পক্ষ থেকে নিহত বাশারের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে এবং তার খুনিদের বিচারের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও শ্রম মন্ত্রণালয়ের কাছে জোর দাবি জানানো হয়।

উল্লেখ্য, কুমিল্লা ইপিজেডের জিং চ্যাং সুজ বিডি কারখানার মানবসম্পদ বিভাগে প্রশাসনিক কর্মকর্তার দায়িত্বে ছিলেন খায়রুল বাশার। সম্প্রতি ওই কারখানায় কিছু কর্মীকে ছাঁটাই করা হয়। এতে খায়রুলের ওপর ক্ষিপ্ত হন কারখানার কিছু শ্রমিক।গত শুক্রবার বিকেল ৪টা কারখানা থেকে বের হয়ে তিনি বাড়ি ফিরছিলেন। ইপিজেড ফটকে পৌঁছালে একদল দুষ্কৃতিকারীরা তার ওপর হামলা চালায়।

তিনি কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার গলিয়ারা উত্তর ইউনিয়নের মান্দারি গ্রামের আবদুল মমিন মাস্টারের ছেলে। বছরখানেক আগে তিনি বিয়ে করেন এবং বর্তমানে তার স্ত্রী ৮ মাসের অন্তঃসত্ত্বা.।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *