ঢাকা, ২১ জুলাই ২০২৪, রবিবার, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
banglahour গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল

অতিরিক্ত বিল্ডিংয়ের কারণে হারিয়ে যাচ্ছে নিউইয়র্ক শহর

বিশ্ব | বাংলাআওয়ার ডেস্ক

(১ বছর আগে) ৩০ মে ২০২৩, মঙ্গলবার, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ন

banglahour

আমেরিকার নিউইয়র্ক সিটি, শহরটিতে নির্মিত অতিরিক্ত ভবনের চাপে মাটি ও পানির নিচে দেবে যাচ্ছে ক্রমশ। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার, এম্পায়ার স্টেট ও সেন্ট্রাল পার্ক টাওয়ারের মতো লাখ লাখ আকাশচুম্বী অট্রালিকাই নিউইয়র্ক সিটিকে আলাদা করে পরিচিত দেয়।

নজরকাড়া স্থাতপ্যশিল্পের এসব ইমারত হয়ে উঠেছে মার্কিনিদের সর্বাধুনিকতার প্রতীক। তবে নিউইয়র্ক শহরকে বিশেষত্ব দেওয়া এসব ভবনই কাল হয়ে দাঁড়াল বিশ্বখ্যাত এই শহরের জন্য। (খবর রয়টার্স)

সম্প্রতি ভ’তাত্তি্কক এক মার্কিন গবেষেণায় উঠে এসেছে এসব তথ্য। এতে বলা হয়েছে, ভবনের ভারে ডুবে যাচ্ছে নিউইয়র্ক নগরী! গবেষকদের শঙ্কা বছরে এক থেকে দু’ কিলোমিটার হারে দেবে যাচ্ছে শহরের ভূভাগ। কিছু কিছু এলাকায় সে হার আরও বেশি বলেও তাদের অভিমত।

তার কারণ হিসেবে ১০ লাখের বেশি সুউচ্চ অট্রালিকাকে দায়ী করছেন তারা। এছাড়াও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে ধীরে ধীর শহর তলিয়ে যাওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক গবেষণা সংস্থার গবেষক টম পারসন বলেন, শহরটি দেবে যাওয়ার বিষয়টা অনেকটা অনিবার্য। ভবনগুলি দেবে যাচ্ছে আর পানির স্তর উপরের দিকে উঠে আসছে। এতে মাটি আর পানির স্তর প্রায় সমান সমান হয়ে যাচ্ছে। অবশ্য সময়টা এখনো নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

নিউইয়র্ক শহর দেবে যাওয়ার পিছনে অন্যতম কারণ হিসেবে বহুতল এসব ভবনকেই সর্বাগ্রে রাখছেন গবেষকরা। ৭৮৩ বর্গকিলোমিটারের শহরে রয়েছে ১০ লক্ষাধিক ভবন। বিশেষজ্ঞদের মতে এসব ভবন তৈরিতে ব্যবহার করা ইট, বালি, কংক্রিট, ইস্পাত আর কাচের ওজন ৭৬২ বিলিয়ন কেজি।

যা কিনা ১৪ কোটি পূর্ণবয়স্ক হাতির ওজনের সমান। রয়েছে শহরটিতে বসবাসরত ৮৪ লাখ মানুষ এবং তাদের ব্যবহার করা আসবাব ও যানবাহান। এছাড়া এলাকা ভরাট করে ভবন নির্মাণও ঝুঁকি বাড়িয়েছে কয়েকগুন।

অতি ওজনে ভূভাগ দেবে যাওয়া ছাড়াও জলবায়ু পরিবর্তনের মারাতœক প্রভাবও পড়েছে নিউইয়র্ক শহরের উপর। ক্রমশ সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির কারণে বেঁড়েছে ঝুঁকিও। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গেলো সাত দশকে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়েছে ৯ ইঞ্চি। ২০৫০ সাল নাগাদ তা বাড়তে পারে ৩০ ইঞ্চি পর্যন্ত।

টম পারসন বলেছেন, নিউইয়র্ক সিটির বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন রকমের মাটি রয়েছে। অবকাঠামোগত উন্নয়নের জন্য কিছু এলাকাকে কৃত্রিমভাবে ভরাট করা হয়। এসব এলাকা দেবে যাওয়ার সর্বোচ্চ ঝুঁকি রয়েছে।  এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনের কারনে হিমবাহ আশঙ্কাজনক হারে গলছে। এতে  শহর তলিয়ে যাওয়ার ঝুঁকিও বেড়েছে অনেকগুন।

নিউইয়র্ক ছাড়াও বিশ্বের আরও অনেক শহর রয়েছে তলিয়ে যাওয়ার তালিকায়। এর মধ্যে ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা রয়েছে শীর্ষস্থানে। শহরটিকে বিশ্বের দ্রæততম ডুবতে থাকা মহানগর বলে আখ্যা দিয়েছেন গবেষকরা। প্রতিবছর প্রায় ১৫ সেন্টিমিটার করে দাবতে থাকা শহরটি ২০৫০ সাল নাগাদ ৯৫ শতাংশ মাটি ও পানির নিচে তলিয়ে যাবে।

banglahour
banglahour
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ হোসনে আরা বেগম
নির্বাহী সম্পাদকঃ মাহমুদ সোহেল
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম
ফোন: +৮৮ ০১৭ ১২৭৯ ৮৪৪৯
অফিস: ৩৯২, ডি আই টি রোড (বাংলাদেশ টেলিভিশনের বিপরীতে),পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯।
যোগাযোগ:+৮৮ ০১৯ ১৫৩৬ ৬৮৬৫
contact@banglahour.com
অফিসিয়াল মেইলঃ banglahour@gmail.com