ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২৪, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
banglahour গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল

উলাইয়া বাংলাদেশের অন্যতম নেতা গ্রেফতার

অপরাধ | নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

(৪ মাস আগে) ১৩ ডিসেম্বর ২০২৩, বুধবার, ৩:১১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ আপডেট: ৩:১৭ অপরাহ্ন

banglahour

হিজবুত তাহরীর বাংলাদেশ/ উলাইয়া বাংলাদেশের অন্যতম নেতা ও সর্বশেষ গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ অনলাইন সম্মেলনের ২য় বক্তা গ্রেফতার
হিজবুত তাহরীর বাংলাদেশ/ উলাইয়া বাংলাদেশ সংগঠনটি প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশে জঙ্গি ও মৌলবাদী কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল। তারা প্রচলিত সমাজ ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে বিশ্বাস করে না এবং দেশের প্রচলিত সমাজ ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে অমান্য করে যে কোন বড় ধরনের আঘাত ঘটাতে পারে। এর  ভিত্তিতে বিগত ২০০৯ সালে বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক  এ সংগঠনকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়। শুরু থেকেই এ সংগঠনের সদস্যগন দেশের সার্বভৌমত্বকে আঘাত ও মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা  বিঘিœত ও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির প্রয়াসে একটি নিষিদ্ধ সংগঠন বা সত্তার সদস্য হিসেবে সক্রিয়ভাবে অনলাইনে দেশবিরোধী প্রচারনায় অংশগ্রহণ করে। এরই ধারাবাহিকতায়  তারা গত কয়েক বছর ধরে অনলাইন সম্মেলন আয়োজনের মাধ্যমে নিষিদ্ধ সত্তা বা সংগঠনকে সমর্থন করে উহার কর্মকান্ডকে গতিশীল করা উদ্দেশ্যে বিভিন্ন প্রচার প্রচারনায় অংশগ্রহণ করে এবং দেশের সার্বভৌমত্বকে আঘাত করার জন্য, গনতন্ত্রকে উৎখাত করার সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করার ষড়যন্ত্র করে আসছে। এ বছর এপ্রিল মাসে একটি অনলাইন সম্মেলনের পর গত ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ তারিখ সন্ধ্যা ০৭টায় তারা যালিম হাসিনা এবং ঔপনিবেশবাদী মার্কিনীদের কবল থেকে মুক্তির উপায় Confererence: Way Out- From the Clutches of Tyrant Hasina and Colonialist AmericaÓ শীর্ষক অনলাইন সম্মেলনের আয়োজন করে। সম্মেলনটি লেবানন ভিত্তিক ALWAQIYA.TV নামক ইউটিউব চ্যানেলে সরাসরি প্রচার করা হয়। এ সম্মেলনে  অংশগ্রহন করার জন্য তারা ঢাকাসহ সারা বাংলাদেশে পোস্টার লাগায় এবং অনলাইনে প্রচার-প্রচারণা চালায়।  সম্মেলনে দুইজন বক্তা এবং একজন উপস্থাপক অংশগ্রহন করে যেখানে সবাই ছদ্মনাম ব্যবহার করে। এ সম্মেলনে বক্তারা সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড ও মার্কিন যুক্তরাষ্টসহ বিভিন্ন দেশের সাথে সরকারের সম্পর্ক প্রভৃতি সম্পর্কে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ভুল তথ্য উপস্থাপন করে বর্তমান পরিস্থিতি বুঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে। আবার ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়েও দেশের সাধারন জনগনকে হিজবুত তাহরীরের নেতৃত্বে শাসন ব্যবস্থা কায়েমের মাধ্যমে ইসলামী রাস্ট্র তথা খেলাফত প্রতিষ্ঠার জন্য উস্কানী প্রদান করা হয়েছে।
তাছাড়া এ সম্মেলনে মাধ্যমে নবী মুহম্মদ (সঃ) এর বিভিন্ন ঘটনা, ইসলামের ইতিহাসের বিভিন্ন ঘটনা প্রভৃতি তাদের মত করে উদাহরন দিয়ে জনগনকে বিভ্রান্ত করে হিজবুত তাহরীরের অনুসারী হওয়ার আহবান জানিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। আবার বিশে^র বিভিন্ন দেশের বিভিন্ন ঘটনা ও ব্যক্তিকে ভুলভাবে উপস্থাপনের মাধ্যমে দেশ ও জনগনের স্বার্থ বিরোধী মতামত উপস্থান করে দেশের সার্ভভৌমত্বকে খাটো করা হয়েছে। এমনকি দেশের প্রচলিত সমাজ ও রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে অস্বীকার করে তাদের পক্ষে বিভিন্ন মতবাদ জনগনের মধ্যে প্রচার করারও চেষ্টা করা হয়েছে। তাদের এ ধরনের কাজ দেশের বিদ্যমান আইনের সুস্পষ্ট লংঘন হিসাবে প্রতিয়মান হয়।
এ সম্মেলনের ২য় বক্তা ও হিজবুত তাহরীরের অন্যতম নেতা এবং বর্তমান সময়ে সক্রিয় নেতৃত্বদানকারী ইমতিয়াজ সেলিম @ইমাদুল আমিন (৪১),পিতাঃ মৃত সেলিম উল্লাহ চৌধুরী, স্থায়ী ঠিকানাঃ সাং -ফরহাদাবাদ, ডাকঘর-কাঠিরহাট, থানা- হাটহাজারি, জেলা-চট্রগ্রাম, বর্তমান ঠিকানাঃ বাসা-৫৯, রোড-০২, বøক-জে, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা, ঢাকা কে তার ভাড়াকৃত বাসা থেকে গতকাল বিকালে ডিএমপির কাউটার টেরোরিজম এন্ড ট্রান্স নাশনাল ক্রাইম (সিটিসিসি) এর ইন্টেলিজেন্স এ্যানালাইসিস ডিভিশন গ্রেফতার করে। 
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত ইমতিয়াজ সেলিম জানায়, সে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিবিএ ও ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ বিভাগ থেকে মাস্টার্স ডিগ্রী সম্পন্ন করে। বর্তমানে সে বনানীতে অবস্থিত একটি মাল্টি ন্যাশনাল কোম্পানিতে হেড অফ বিজনেস, টলিং এবং জেনারেল ম্যানেজার, সেলস হিসাবে কর্মরত আছে। বিশ^বিদ্যালয় থেকে পাশ করার পর ২০১০ সালে সে তার এক বন্ধুর মাধ্যমে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন হিযবুত তাহ্রীর সম্পর্কে প্রথম জানতে পারে এবং এ সংগঠনে যোগদান করে। ১২ মে ২০১০ সালে সে হিজবুত তাহরীর করার অভিযোগে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কর্তৃক গ্রেফতার হয়ে বাড্ডা থানার মামলায় এজহারভুক্ত আসামী হিসাবে ছয় মাস জেলে অবস্থান করে। জেলে অবস্থানের সময় অভিযুক্ত ইমতিয়াজ সেলিম বাংলাদেশে হিজবুত তাহরীরের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ডঃ সৈয়দ গোলাম মাওলা ও প্রফেসর মহিউদ্দিনের সান্নিধ্য লাভ করে এবং তাদের বয়ানে সে হিজবুত তাহরীরের প্রতি আরও বেশী অনুরক্ত হয়ে পড়ে। জামিনে মুক্তি পেয়ে সে পরিবারসহ অস্ট্রেলিয়া গমন করে ০১ বৎসর অবস্থান করে দেশে এসে হিজবুত তাহরীরের সদস্য হিসাবে কার্যক্রম অব্যহত রাখে। সে গত৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ এর আগে সে ২০২১ সালের ০৩ ডিসেম্বর আরও একটি অনলাইন সম্মেলনের বক্তা হিসেবে গনতন্ত্র ও দেশের প্রচলিত আইনকে অস্বীকার করে সে বক্তব্য প্রদান করে।
জানা যায়, সে মার্শাল আর্টে বøাক বেল্ট ধারী এবং বাংলাদেশ জাতীয় কারাতে ফেডারেশনের তালিকাভুক্ত প্রশিক্ষক ও আন্তর্জাতিক রেফারি। তাছাড়া তিনি জাপান কারাতে এসোসিয়েশনের লাইসেন্সধারী প্রশিক্ষক। তারা সংগঠনের জন্য তৈরীকৃত বিশেষ এ্যাপস এবং অপ্রচলিত ইনক্রিপ্টেড এ্যাপস এর মাধ্যমে অন্য সদস্যদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলে ফলে বেশীর সময় তারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকে। গোপনে ও প্রকাশ্যে তারা কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে সমন্বয় করে তাদের কার্যক্রম চলমান রেখেছে। সাম্প্রতিক সময়ে সরকার ও দেশ বিরোধী পোস্টার, মসজিদে মসজিদে নামাজের পর বয়ান প্রভৃতি কার্যক্রমেও সে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত মর্মেও জানা যায়। তাছাড়া অনলাইন সম্মেলনগুলিতে সে সমন্বয়ক ও ক্ষেত্র বিশেষে বক্তা হিসেবে ভ‚মিকা পালন করে।
অনলাইন সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী ইমতিয়াজ সেলিম @ইমাদুল আমিন (৪১) কে গত ০৮ ডিসেম্বর ২০২৩ তারিখে রমনা মডেল থানা, ঢাকায় অনলাইন মিটিং সংক্রান্তে দায়ের করা সন্ত্রাস বিরোধী আইন ২০০৯ এর আসামী হিসেবে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে এবং পরবর্তী আইনী কার্যক্রম চলমান আছে। 

banglahour
banglahour
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ হোসনে আরা বেগম
নির্বাহী সম্পাদকঃ মাহমুদ সোহেল
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম
ফোন: +৮৮ ০১৭ ১২৭৯ ৮৪৪৯
অফিস: ৩৯২, ডি আই টি রোড (বাংলাদেশ টেলিভিশনের বিপরীতে),পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯।
যোগাযোগ:+৮৮ ০১৯ ১৫৩৬ ৬৮৬৫
contact@banglahour.com
অফিসিয়াল মেইলঃ banglahour@gmail.com