ঢাকা, ২১ এপ্রিল ২০২৪, রবিবার, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
banglahour গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল

ঢাবির ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজে ‘মাইক’ টিম, শিশুদের উচ্ছ্বাস

বিনোদন | নিজস্ব প্রতিবেদক

(৮ মাস আগে) ৬ আগস্ট ২০২৩, রবিবার, ৪:১৭ অপরাহ্ন

banglahour

ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণকে উপজীব্য করে নির্মিত প্রথম শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘মাইক’ এর তৃতীয় দিনের প্রচারণার অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। পূর্ণদৈর্ঘ্য এ চলচ্চিত্রটি বাংলাদেশ সরকারের অনুদানে নির্মিত। ইতোমধ্যে প্রকাশ হয়েছে সিনেমাটির পোস্টার, ট্রেলার, টিজার ও গান। সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে আগামী ১১ আগস্ট।

রবিবার, ৬ আগস্ট সকালে শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘মাইক’ এর তৃতীয় দিনের প্রচারণা হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের "ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজে"। এই সিনেমাকে ঘিরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটির অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভাও অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে সিনেমার ট্রেলার ও একটি গান শিশুদের উদ্দেশ্যে পরিবেশন করা হয়। যা দেখে করতালিতে মুখরিত হয়ে উঠে পুরো অডিটোরিয়াম প্রাঙ্গণ। পরে শুরু হয় স্কুলের শিশুদের নিয়ে ‘মাইক’ সিনেমার অভিনেতা -অভিনেত্রীসহ কলাকুশলীদের মাঝে উচ্ছ্বাস -উদ্দীপনা। এদিকে অনুষ্ঠানে কুইজ গেমও আয়োজন করা হয়। ফলে মেধার পরিচয় দিয়ে অনেকে পেয়েছেন উপহার।

প্রচারণার অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে অভিনেত্রী তানভীন সুইটি বলেন, বাচ্চারা কেমন আছো? তোমাদের এই সিনেমার ট্রেলার ও গান কেমন লেগেছে?  তখন বাচ্চারা উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, খুবই ভালো লেগেছে। তখন তিনি বলেন, 
পুরো বাংলাদেশের জন্য আমরা এই সিনেমাটি বানিয়েছি। আর এই সিনেমাটি
ঐতিহাসিক ৭ মার্চে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে ভাষণ দিয়েছিলেন তাকে ঘিরে তৈরি। তোমরা কি সেই ভাষণ শুনেছো? তখন বাচ্চারা চিৎকার করে শুনেছেন বলে জবাব দেন। তখন তিনি আবার প্রশ্ন করেন,তোমরা কি জানো? এই দেশটা আমরা যুদ্ধ করে স্বাধীন করেছি? বাচ্চারা জানেন বলে হাত উঁচু করে জবাব দেন। এভাবে তিনি বাচ্চাদের সাথে উচ্ছ্বাস উদ্দীপনায় মেতে উঠেন।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে এই দেশ স্বাধীন হলেও বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর 
সব ইতিহাসকে মুছে ফেলা হয়েছিল।আমরা নিজেরা জানতাম না পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে ৭ই মার্চের ভাষণ ছিল কিংবা দেশ কীভাবে স্বাধীন হয়েছে। তখন ৭ মার্চের ভাষণসহ অনেক কিছু নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এই দেশটাকে কে তৈরি করে গেছেন? সেটাকে ঢাকতে চেষ্টা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধুর একটা ডাকে লাখ লাখ মানুষ ছুটে এসেছিল। আমরাইতো সেইসব ইতিহাস জানি না। আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম কীভাবে জানবে?

সুইটি বলেন,আমাদের ইতিহাস যেন লুকিয়ে না থাকে। তাই মাইক চলচ্চিত্রটি নির্মাণ করা হয়েছে। শিশুরা ও ছেলে মেয়েরা তোমরা তোমাদের বন্ধুবান্ধব, পরিবার নিয়ে সিনেমাটা দেখো। আমার বিশ্বাস, তোমরা জাগ্রত ইতিহাস জানতে পারবে আর তোমাদের অবশ্যই ভালো লাগবে।

অভিনেতা ঝুনা চৌধুরী বাচ্চাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আজকে কয় তারিখ? তখন বাচ্চারা বললো, ৬ তারিখ। তখন তিনি বলেন, তার পরের দিন কয় তারিখ?  তারা বললো, ৭ তারিখ। এভাবে তিনি ধাপে ধাপে তারিখ জিজ্ঞেস করলে তারা ১১ তারিখ পর্যন্ত বলে যায়। তখন তিনি বলেন,১১ তারিখে কী হবে? তখন বাচ্চারা উচ্চস্বরে বলেন, ১১ তারিখ মাইক সিনেমা মুক্তি পাবে। এরপর তিনি বলেন, ছবির গল্পটা কী, তোমরা জানো? এরপর তিনি এই সিনেমার বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণসহ নানা দিকের কথা বাচ্চাদের কাছে তুলে ধরেছেন।

তিনি বলেন, পড়াশোনার যেমন প্রয়োজন আছে তেমনি সিনেমারও প্রয়োজন আছে। কারণ, সিনেমার মাধ্যমে জাগ্রত ইতিহাস জানা যায়। আর এক্ষেত্রে মাইক চলচ্চিত্রটি এই দেশের ইতিহাসের সিনেমা, বঙ্গবন্ধুর সিনেমা।

ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল (ভারপ্রাপ্ত) সেলিনা আক্তার বলেন, মাইক সিনেমার ট্রেলার ও গান আমাকে মুগ্ধ করেছে। আর এগুলো আমার ছাত্র-ছাত্রীদের অনুপ্রাণিত করেছে, যেটি আজ আমি তাদের উচ্ছ্বাস দেখে বুঝতে পেরেছি।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কেন্দ্রিক সবকিছু ছবির মাধ্যমে প্রদর্শিত হোক। কারণ, সিনেমার মাধ্যমে আমরা কোন কিছুকে মনে স্থান দিতে পারি, যেটা অনেক সময় পড়েও হয় না। আরেকটা বিষয় বলি- শেখ রাসেল আমাদের এই স্কুলে পড়তেন। তাকেও নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। কাজেই আমি চাই তাকে নিয়ে সামনে চলচ্চিত্র নির্মাণ হোক। সর্বোপরি, আমি বঙ্গবন্ধুর ভাষণ নিয়ে নির্মিত মাইক চলচ্চিত্রের মতো একটি সিনেমা তৈরি করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ও ‘মাইক’ চলচ্চিত্রের গল্পকার, প্রযোজক ও পরিচালক এফ এম শাহীন বলেন, ‘মাইক’ চলচ্চিত্র নতুন প্রজন্মের কাছে জাতির পিতার ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ নতুন মাত্রায় পৌঁছে দেবে। আগামী ১১ আগস্ট ‘মাইক’ দর্শকদের জন্য সিনেমা হলে মুক্তি পাবে। শিশুতোষ চলচ্চিত্র 'মাইক' এর মাধ্যমে তরুণ প্রজন্ম বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণসহ স্বাধীনতার ইতিহাস জানতে পারবে। একইসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে 'মাইক' গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সবার প্রতি অনুরোধ আপনারা সিনেমা হলে আসুন, ভালো সিনেমা দেখুন।

‘মাইক’ সিনেমার প্রচারণা অনুষ্ঠানটি ২য় ধাপে অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম ধাপে স্কুলের বাচ্চাদের নিয়ে আর ২য় ধাপে ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, নবম শ্রেণির ছাত্রছাত্রীরা অংশ নেন। উভয় পর্বে কুইজ গেমও আয়োজন করা হয়। যেখানে উভয় পর্বে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক ৫ টি করে ১০ প্রশ্ন করা হয়। আর এই প্রশ্নগুলোর দ্রুত উত্তর দিতে পারা প্রত্যেক পর্ব থেকে ৫ জন করে ১০জনকে মাইক চলচ্চিত্রের লোগো সংবলিত টি-শার্ট উপহার দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানে সিনেমার সহযোগী প্রযোজক ও
বিবার্তা২৪ডটনেটের সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার সালমা বিনতে হক, ল্যাবরেটরী স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষক শাহজীদা নাজনীন সুরভী, মোরশেদা আক্তার শিলাসহ প্রমুখ শিক্ষক ও  ছাত্রছাত্রীরা উপস্থিত ছিলেন।

এরআগে বৃহস্পতিবার (৩ আগস্ট) থেকে শুরু হয়েছে সিনেমাটির বর্ণিল প্রচারণা। রাজধানীর উদয়ন উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রচারণার মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়। পরে শুক্রবার (৪ আগস্ট) দ্বিতীয় দিনের মতো প্রচারণা বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে শিক্ষার্থীদের মাঝে করা হয়। এসব প্রচারণায় ‘মাইক’ সিনেমায় অভিনয় শিল্পী বিশিষ্ট অভিনেতা তারিক আনাম খান, চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ ও অভিনেত্রী তানভীন সুইটিসহ কলাকুশলীগণ অংশ নেন।

উল্লেখ্য,লেখক, কলামিস্ট ও সংগঠক এফ এম শাহীনের প্রযোজনায় চলচ্চিত্রটি যৌথভাবে পরিচালনা করছেন এফ এম শাহীন ও হাসান জাফরুল বিপুল। গত ২৯ মে চলচ্চিত্রটি আনকাট সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। ‘মাইক’ চলচ্চিত্রটি দেখে সেন্সরবোর্ডের সদস্যরাও ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণকে কেন্দ্র করে এ ধরনের সিনেমা নির্মাণকে তারা সাধুবাদ জানিয়েছেন। গত ২৮ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) অডিটোরিয়ামে চলচ্চিত্রটির বিশেষ প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। 'মাইক' সিনেমায় জুটি হয়ে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ফেরদৌস আহমেদ ও অভিনেত্রী তানভীন সুইটি। এছাড়াও বিশিষ্ট অভিনেতা তারিক আনাম খান, নাদের চৌধুরী, ঝুনা চৌধুরী, জয়িতা মহলানবিশ, সংগীতা চৌধুরী, রহিম সুমন, ইকবাল হোসাইন, শিশুশিল্পী সানজিদ রহমান খান, আলী আবদুল্লাহ দাইয়ান ভূঁইয়া, খোন্দকার মেঘদূত জলিল, মীর্জা ত্বাবীব ওয়াসিতকে কেন্দ্র করে সিনেমার কাহিনী আবর্তিত হয়েছে।সিনেমাটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে আগামী ১১ আগস্ট।

 

banglahour
banglahour
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন প্রাপ্ত নিউজ পোর্টাল
উপদেষ্টা সম্পাদকঃ হোসনে আরা বেগম
নির্বাহী সম্পাদকঃ মাহমুদ সোহেল
ব্যবস্থাপনা সম্পাদকঃ মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম
ফোন: +৮৮ ০১৭ ১২৭৯ ৮৪৪৯
অফিস: ৩৯২, ডি আই টি রোড (বাংলাদেশ টেলিভিশনের বিপরীতে),পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা-১২১৯।
যোগাযোগ:+৮৮ ০১৯ ১৫৩৬ ৬৮৬৫
contact@banglahour.com
অফিসিয়াল মেইলঃ banglahour@gmail.com